[View Page in English]

আইফোনঃ রাজকীয় ফিচার ও ডিজাইন সহ অ্যাপল আইফোন(iPhone) কিনুন অনলাইনে

বিশ্বখ্যাত প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের ইনকর্পোরেটেড পণ্যগুলির মধ্যে মোবাইল ফোনের জনপ্রিয়তা সারা বিশ্বেই ধরা ছোঁয়ার বাইরে। বিশ্বের স্বনামধন্য মোবাইল ব্র্যান্ড অ্যাপলের স্মার্টফোন আইফোন(iphone) নামেই দেশের বাজারে অত্যধিক জনপ্রিয়। আইফোন হল অ্যাপলের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও টেকসই যন্ত্রাংশের তৈরী দারুণ সব ফিচার ও উচ্চগতির আইওএস(ios) অপারেটিং সিস্টেম দ্বারা পরিচালিত একটি স্মার্টফোন। বিশ্বব্যাপী দারুণ জনপ্রিয় আইফোন সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছেও তুমুল জনপ্রিয় মোবাইল ফোন। সময়ের পরিক্রমায় লোকাল মার্কেটের গন্ডি পেরিয়ে আইফোন এখন অনলাইনেও পাওয়া যাচ্ছে অনেক সহজে। বর্তমানে বাংলাদেশের যেকোন জায়গা থেকে অনলাইনে কোন প্রকার ঝক্কি-ঝামেলা ছাড়াই দারাজ থেকে অনলাইনে ঘরে বসে খুব সহজেই শপিং করতে পারবেন জনপ্রিয় টেক ব্র্যান্ড অ্যাপল(Apple) এর যে কোন মডেলের আধুনিক সব অ্যাপল আইফোন মোবাইল খুব সহজেই।

আইফোন ১০ এবং আইফোন ১০ এক্স (iPhone 10 & 10s) - সেরা দাম

২০১৭ সালে আইফোন সিরিজ উন্মোচনের দশম বছরে আইফোন এক্স বা আইফোন টেন অবমুক্ত করে অ্যাপল। আইফোন এক্সে প্রথমবারের মতো ওএলইডি ডিসপ্লে প্রযুক্তি ব্যবহার করে অ্যাপল। এতে ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তির পাশাপাশি আইফোনের প্রথাগত হোম বাটন সরিয়ে নচযুক্ত বেজেললেস ডিজাইনের সাথেও প্রথমবারের মতো পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। এর ফলে আইফোন এক্স এর ডিসপ্লের বেজেল সরিয়ে স্ক্রিনের সেন্সরগুলোকে নচে জায়গা দেয়া হয়- যা ডিসপ্লের ওপরের দিকেই থাকে। আইফোন এক্স এর আরেকটি চমক ছিলো ফেইস আইডি প্রযুক্তি। এর ফলে ব্যবহারকারীর চেহারাকেই পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করে আনলক করা যাবে আইফোন এক্স। সেই সাথে ঝকঝকে স্পষ্ট ছবি তোলার জন্য ৫.৮ ইঞ্চির এই ফোনটিতে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল ক্যামেরা ও ৭ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। তাছাড়া আইফোন এক্সে ব্যবহার করা হয়েছে উচ্চগতির প্রসেসর, যা ব্যবহারকারীকে দেবে স্মুথ ইউজার এক্সপেরিয়েন্স। আইওএস ১১.১.১ চালিত আইফোনটি ৩ জিবি র‍্যামের আইফোন এক্স ৬৪ জিবি ও ২৫৬ জিবি র‍মের দুটি আলাদা সংস্করণে পাওয়া যাবে।

অ্যাপল আইফোন ৮ এবং ৮ প্লাস (iPhone 8 & 8s plus) - সেরা দাম

আইফোন ৮ ও আইফোন ৮ প্লাস অ্যাপলের একাদশ প্রজন্মের আইফোন। ২০১৭ সালে এই দুই মডেলের আইফোন বাজারে ছাড়ে অ্যাপল(apple)। দুটি ফোনেরই পেছনে গ্লাস ব্যাক যুক্ত করা হয়েছে। ডিজাইনের দিক থেকে আগের আইফোনগুলোর সাথে মিল থাকলেও এতে যোগ করা হয়েছে তারবিহীন ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি ও উচ্চগতির প্রসেসর। এছাড়া রয়েছে উন্নত ডিসপ্লে ও আগের চেয়ে ভালো ক্যামেরা। বরাবরের মতো এই মডেল দুটিতেও ব্যবহার করা হয়েছে রেটিনা এইচডি ডিসপ্লে। দুটি মডেলেই ৭ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা ব্যবহৃত হলেও রেয়ার ক্যামেরা হিসেবে ৪.৭ ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোন ৮ -এ রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল ও ৫.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোন ৮ প্লাস -এ থাকছে ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রেয়ার ক্যামেরা। দুটি মডেলেই উন্নত প্রযুক্তির উচ্চগতির চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে, যা আগের ভার্সনের আইফোনের চেয়ে অনেক বেশি দ্রুতগতির। আইওএস ১১.০ চালিত আইফোন ৮ ও আইফোন ৮ প্লাসে যথাক্রমে ২ জিবি ও ৩ জিবি র‍্যাম ব্যবহৃত হয়েছে। দুটি আইফোনই ৬৪ জিবি ও ২৫৬ জিবি রম এই দুই সংস্করণে পাওয়া যাচ্ছে বাজারে।

অ্যাপল আইফোন ৭ এবং ৭ এস প্লাস (iPhone 7 & 7s plus) - সেরা দাম

২০১৬ সালে সেপ্টেম্বরে নতুন নকশা আর নতুন দুটি রঙে বাজারে এসেছিল নতুন দুই আইফোন - অ্যাপল আইফোন ৭ ও ৭ এস প্লাস। ফোনটির নকশার হোম বাটন ছাড়াও প্রথমবারের মতো আইফোনে যুক্ত হয়েছিল ধুলা ও পানি প্রতিরোধী প্রযুক্তি। অ্যাপল আইফোনের নতুন এই স্মার্টফোনের নকশায় কিছুটা পরিবর্তন লক্ষ করা গেছে। গোল্ড, সিলভার, রোজ গোল্ড রং ছাড়াও জেট ব্ল্যাক ও ব্ল্যাক রঙে পাওয়া যাবে অ্যাপল আইফোন ৭। এর হোম বাটন হয়েছে ফোর্স সেনসিটিভিটি। এতে নতুন প্রজন্মের ট্যাপটিক ইঞ্জিন বসেছে। নোটিফিকেশন, মেসেজের জন্য নতুন ফিডব্যাক সিস্টেম এসেছে। এটি এখন আইপি ৬৭ মান, অর্থাৎ ধুলা ও পানি প্রতিরোধী। আইফোন ৭-এ থাকছে একটি অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন (ওআইএস) যুক্ত একটি ক্যামেরা এবং ৭ প্লাসে থাকছে দুটি ক্যামেরা। আপলের নতুন ফোনের অ্যাপারচার হবে ১ দশমিক ৮। ক্যামেরার জন্য নিজস্ব ইমেজ-সিগনাল প্রসেসর তৈরি করেছে অ্যাপল। আপলের নতুন এই সংস্করণ ৩০ শতাংশ অধিক কার্যকর ও ৬০ শতাংশ দ্রুতগতির। এতে কম আলোতে উন্নত ছবি উঠবে। আইফোনের সামনে ৭ মেগাপিক্সেলের ফেসটাইম এইচডি ও পেছনে ১২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা থাকছে। দুটি ১২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরার মধ্যে একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ও অন্যটি ৫৬ মিলিমিটার টেলিফটো লেন্স। অ্যাপল আইফোন ৭-এ রেটিনা এইচডি ডিসপ্লে যুক্ত করা আছে। মূলত এ কারনেই অ্যাপল আইফোন ৬ এস ও ৬ এস প্লাসের চেয়ে ডিসপ্লে ২৫ শতাংশ উজ্জ্বল দেখায়। দুটি মডেলেই যুক্ত আছে স্টেরিও স্পিকার। একটি ওপরে ও একটি ফোনের নিচের অংশে। হেডফোন জ্যাকের পরিবর্তে আইফোনে এসেছে এয়ারপড। পারফরম্যান্সের দিক থেকেও এটি আপলের সব সময়ের অন্যতম সেরা মডেলের একটি বলে বিবেচিত হয়ে থাকে। এতে থাকছে এ ১০ ফিউশন প্রসেসর, যাতে চার কোর প্রসেসর ও ৩ দশমিক ৩ বিলিয়ন ট্রানজিস্টর থাকবে। অ্যাপল আইফোন ৬ এসে ব্যবহৃত এ ৯ চিপের চেয়ে গ্রাফিকস ৫০ শতাংশ দ্রুত কাজ করে থাকে।

অ্যাপল আইফোন ৬ এস এবং ৬ এস প্লাস (iPhone 6 & 6s plus) - সেরা দাম

২০০৬ সালে নতুন প্রজন্মের দুটি মডেলের আইফোন বাজারে ছাড়ে অ্যাপল। ৬ এস ও ৬ এস প্লাস নামের এই স্মার্টফোন দুটিতে ফিচার হিসেবে থাকছে থ্রিডি টাচ প্রযুক্তি। অ্যাপলের এই আইফোন দুটিতে যে থ্রিডি টাচ প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে ব্যবহারকারী ট্যাকটাইল ফিডব্যাক বা উন্নত ভাইব্রেশন প্যাটার্ন সুবিধা পাবেন। এ ছাড়াও শর্টকাট মেন্যু তৈরিতেও বিশেষ সুবিধা হবে। ফোরকে মানের ভিডিও ধারণ করার জন্য আপলের আইফোন দুটির পেছনে উন্নত আই-সাইট ক্যামেরা যুক্ত করেছে অ্যাপল। ফোরকে ডিসপ্লেতে রেজুলেশন থাকে ৩৮৪০ বাই ২১৬০ যাতে পিক্সেল ঘনত্ব হয় ইঞ্চি প্রতি ৮০৬। ২০১৫ সালে বাজারে আসা আইফোন ৬ এ আট মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা থাকলেও আইফোন ৬ এস ও ৬ এস প্লাস -এর পেছনে ১২ মেগাপিক্সেল ও সামনে পাঁচ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা যুক্ত হয়েছে। লাইভ ফটোজ নামের নতুন একটি ফিচারও যুক্ত থাকছে। আইফোন ৬ এস ও ৬ এস প্লাস ১৬ জিবি, ৬৪ জিবি ও ১২৮ জিবি এই তিনটি সংস্করণে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। আপলের এই আইফোন দুটির মাপ চার দশমিক সাত ইঞ্চি ও সাড়ে পাঁচ ইঞ্চি। স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে ৬৪ বিটের এ৯ চিপ। অ্যাপলের আইফোন দুটিতে আছে আইওএস ৯ অপারেটিং সিস্টেম।

দারাজের অন্যান্য মোবাইল ব্র্যান্ড সমূহ একনজরেঃ

স্যামসাং মোবাইল | শাওমি মোবাইল | হুয়াওয়ে মোবাইল | ভিভো মোবাইল | সিম্ফোনি মোবাইল | নোকিয়া মোবাইল | বাটন মোবাইল

আইফোন এর দাম(বেষ্ট প্রাইস ইন বাংলাদেশ) - দারাজে পাচ্ছেন সাশ্রয়ী মূল্যেই

বাংলাদেশে আইফোনের দাম কত? দেশের বাজারে অ্যাপল আইফোনের দাম নিয়ে দুশ্চিন্তার দিন এখন শেষ। দেশে সবচেয়ে সাশ্রয়ী সমমানের অ্যাপল(apple) আইফোন এর দাম এখন দারাজেই পাওয়া সম্ভব। দারাজে এখন সব মডেলের আইফোন মোবাইলের দাম ভোক্তাদের ধারণ ক্ষমতার মধ্যেই থাকছে। অনলাইনে প্রায়শই আইফোন ১০ এর দাম কত? - এমন প্রশ্ন চোখে পড়ে। সৌভাগ্যবশত সুলভ মূল্যেই দারাজে পাবেন লেটেষ্ট (২০২০) আইফোন এক্স এস (আইফোন ১০ এস) সহ বিভিন্ন আইফোন মডেল। আর তাই আইফোন ৭ এর দাম ও আইফোন ৭ প্লাস এর দাম বাংলাদেশ -এ সাশ্রয়ী পরিসরেই পাওয়া যাবে। তাছাড়া বাংলাদেশ -এ আইফোন ৬ এর দাম কত? অথবা আইফোন ৬ প্লাস দাম কত? এসব নানাবিধ তথ্য এখন দারাজ অনলাইন শপ থেকে জেনে নেওয়া সম্ভব। আর দারাজে আইফোন ৪ এর দাম কত কিংবা আইফোন ৫ এর দাম কত - সেই মূল্যরেটের উপর ভিত্তি করে পছন্দের আইফোন শপিং এর বাজেট খুব সহজে করে ফেলতে পারেন ঘরে বসে। আপনার কাঙ্ক্ষিত স্মার্টফোন মডেলটি পেতে এখনি ব্রাউজ করতে পারেন দারাজের অ্যাপল স্মার্টফোন (আইফোন) ক্যাটাগোরিতে। সহজ পদ্ধতিতে অনলাইনে অর্ডার করলেই দেশব্যাপী দ্রুত হোম ডেলিভারির মাধ্যমে অ্যাপলের আইফোন মোবাইল ও আইপ্যাড পৌঁছে যাবে আপন ঠিকানায়। সাথে অফিশিয়াল ওয়ারেন্টি তো থাকছেই। তো আর দেরি কেন? আজই দারাজ থেকে তুলনামূলক কম দামে আইফোন অর্ডার করে উপভোগ করতে পারেন বাংলাদেশে অনলাইনে কেনাকাটার দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা একেবারে নিশ্চিন্তে।

অ্যাপল আইফোনের দাম - আইফোন মোবাইল দারাজ থেকে কিনুন সহজেই

বাংলাদেশে অ্যাপল আইফোন এর সবচেয়ে সাশ্রয়ী দাম(আইফোন প্রাইস ইন বাংলাদেশ) এখন দারাজে। দারাজে পাবেন আইফোন টেন(১০) সহ বিভিন্ন লেটেষ্ট(২০২০) আইফোন মডেল অবিশ্বাস্য দাম(আইফোন price) ও ডিসকাউন্টে। আপনার কাংখিত স্মার্টফোন মডেলটি পেতে ব্রাউজ করুন দারাজের অ্যাপল স্মার্টফোন(আইফোন) ক্যাটেগরিতে, অনলাইনে অর্ডার করুন এবং নতুন আইফোন আপনার দরজায় আসার জন্য অপেক্ষা করুন। দারাজ(daraz.com.bd) অনলাইন শপের মাধ্যমে উপভোগ করুন সেরা অনলাইন শপিং এর দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা একদম ঝামেলাহীন ভাবে।